শরীয়তপুরে ঈদ আনন্দ রূপ নিলো বিষাদে !

0
71

ঈদ আনন্দ রুপ নিলো বিষাদে! গ্রামজুড়ে নেমে এলো শোকের ছায়া। হারিয়ে গেলো দুটি প্রাণ! মঙ্গলবার (১৩ আগস্ট) শরীয়তপুরেরনড়িয়া উপজেলার নওপাড়া মুন্সিকান্দি গ্রামে এ দুর্ঘটনা ঘটে। পদ্মা নদীতে গোসল করতে নেমে পানিতে ডুবে দুই ভাই-বোনের মৃত্যু হয়েছে। তারা হলো- আব্দুল হক বেপারির ছেলে মোহাম্মদ শরীফ (১৭) ও মেয়ে মাহফুজা আক্তার (১৪)।

নওপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সোহেল মুন্সি বলেন, ‘পদ্মায় ডুবে ভাই-বোনের মৃত্যর ঘটনাটি কেউ মেনে নিতে পারছে না। গ্রামের মানুষের ঈদ আনন্দ এখন বিষাদে রূপ নিয়েছে।’

শরিফ ও মাহফুজার নানা আব্দুল হাই দেওয়ান বলেন, ‘ঈদ উপলক্ষে ছেলে-মেয়ে ও নাতি-নাতনিরা বাড়িতে এসেছে। বাড়িজুড়ে আনন্দ উৎসব। দুপুরে রান্না হচ্ছিল। ওরা নদী থেকে ফিরলেই একসঙ্গে বসে সবার খাবার খাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু, ওদের হারিয়ে যাওয়ার খবরটি কেউ মানতে পারছি না।’

শরিফ ও মাহফুজার খালাত বোন রিয়া বলেন, ‘শরিফ ভাই ও মাহফুজা সাঁতার কাটছিল। আমার চোখের সামনেই তারা পানিতে তলিয়ে যায়।’

শরীয়তপুরের জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহের বলেন, ‘নওপাড়া চতুর্দিকে পদ্মা নদী দিয়ে বেষ্টিত। অনেক দুর্গম চর। দুই শিক্ষার্থী পদ্মায় ডুবে গেছে এমন খবর পেয়ে ডুবরি খবর দেওয়া হয়। ডুবরিরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে ওই দুই শিক্ষার্থীর লাশ উদ্ধার করেছে।’

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শরীফ ও মাহফুজা ঢাকায় লেখাপড়া করে। শরীফ একাদশ ও মাহফুজা নবম শ্রেণিতে। বাবা-মায়ের সঙ্গে তারা দুজন নানা বাড়িতে ঈদ করতে এসেছিল। মঙ্গলবার (১৩ আগস্ট) দুপুরে শরিফ ও মাহফুজা তাদের মামাতো ও খালাতো ভাই-বোনদের সঙ্গে পদ্মা নদীতে গোসল করতে যায়। দুপুর আড়াইটার দিকে সাঁতার কাটতে গিয়ে দুই ভাই-বোন পানিতে তলিয়ে যায়। খবর পেয়ে স্বজনরা নদীতে তাদের খোঁজাখুঁজি করেন। পরে নারায়ণগঞ্জ থেকে ডুবুরি এসে তাদের সন্ধান শুরু করে। রাত সাড়ে ৮টার দিকে মুন্সিকান্দি গ্রামের পদ্মা নদী থেকে তাদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। 

একটি উত্তর ত্যাগ

দয়া করে আপনার মন্তব্য লিখুন !
দয়া করে এখানে আপনার নামটি লিখুন