প্লাস্টিক গলানোর ‘ব্যাকটেরিয়া’ আবিষ্কার

0
41

সমুদ্রের গভীরে প্লাস্টিকের আধিক্যতা বর্তমান সময়ের এক অন্যতম সমস্যা। যুক্তরাষ্ট্রে ক্যালিফোর্নিয়ার গবেষণা সংস্থা ‘বায়োসিলেকশন ইংক’ সম্প্রতি এ নিয়ে গবেষণা করেছে। এ গবেষণায় দেখা গেছে, সমুদ্রে জমা পড়ছে প্লাস্টিক। এ কারণে ২০৫০ সালের মধ্যে সমুদ্রে জলজ প্রাণির থেকে প্লাস্টিকের পরিমাণ বেশি হবে।

সাম্প্রতিক সময়ে জেনি ইয়াও এবং মিরান্ডা ওয়াং নামের ২০ বছরের দুই শিক্ষার্থী আবিষ্কার করেছেন সমুদ্রের নিচে থাকা প্লাস্টিক গলানোর ব্যাকটেরিয়া। জেনি ইয়াও ইউনিভার্সিটি অব টরেন্টোতে বায়ো ক্যামিস্ট্রিতে এবং মিরিন্ডা ওয়াং ইউনিভার্সিটি অব ইউনিভার্সিটি অব পেনসিলভানিয়াতে সেল অ্যান্ড মলিকুলার বায়োলজি নিয়ে লেখাপড়া করছেন।

তারা স্কুল থেকে এই প্রজেক্ট নিয়ে কাজ করছেন এবং সাম্প্রতিক সময়ে তাদের মৌলিক আবিষ্কার হিসেবে প্যাটেন্ট পেয়েছেন। ‘গ্রিন ওয়েস্ট রিকভারি’, ‘ইলিমেন্টার এক্সিলারেটর’ এবং ‘দ্যা সিটি অব সান জোস’ দূষণমুক্ত পরিবেশের কথা বিবেচনা করে চার লাখ ডলার তাদেরকে গবষণার উন্নয়নের জন্য অর্থায়ন করেছেন।

এরইমধ্যে এই আবিষ্কার সারা বিশ্বে আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। দুইজনেই পেয়েছেন রাশিয়ার ‘পার্লম্যান সায়েন্স অ্যাওয়ার্ড- ২০১৯’। তাছাড়া ‘সিআইটিইও সার্কুলার চ্যালেঞ্জ ইন্টারনেশনাল গ্র্যান্ড প্রাইজ-২০১৮’ , প্যালো এল্টো ইমপ্যাক্ট সেন্টার থেকে পেয়েছেন ‘টেকলিং দ্যা বিগেস্ট প্রব্লেম’ সম্মাননা। এছাড়াও আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম সিএনএন ২০১৮ এর জুলাইতে তাদের ‘টোমরো হিরো’ হিসেবে ঘোষণা করেছে।

এই বায়োটেকনোলজি দুই ভাবে কাজ করবে। প্রথম ধাপে ব্যাক্টেরিয়ার প্রভাবে প্রথমে প্লাস্টিক গলে যাবে এবং প্লাস্টিক অতি নমনীয় হিসেবে ক্ষুদ্রক্ষুদ্র অংশে পরিণত হবে। দ্বিতীয় ধাপে এনজাইমের প্রভাবে ক্ষুদ্রক্ষুদ্র অংশগুলো কার্বনডাই অক্সাইড ও পানিতে পরিণত হবে। ব্যাক্টেরিয়ার পুরো কাজটি সম্পন্ন করতে ২৪ ঘণ্টা সময় লাগবে।

২০১৯ সালের ১৫ মে ফিজিক্স এস্ট্রোনমি অর্গানাইজেশনকে মিরান্ডা ওয়াং জানান, কিছু মানুষ থাকবেই যাদের সচেতন করলেও তারা সমুদ্রে প্লাস্টিক ফেলবে। তাই পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর এসব বর্জ্যগুলোকে জীবাণু বিয়োজ্য করা যায় কিনা সেই বিষয়টা নিয়ে কাজ শুরু করি।

একটি উত্তর ত্যাগ

দয়া করে আপনার মন্তব্য লিখুন !
দয়া করে এখানে আপনার নামটি লিখুন